প্লট বরাদ্দের নীতিমালা

১। “ আগে আসলে আগে পাবেন ভিত্তিতে এবং প্লট খালি থাকা সাপেক্ষে গ্রাহকগণ তাদের পছন্দের প্লট বুকিং দিতে পারবেন।

২। একাধিক ব্যক্তি যৌথ নামে প্লট বুকিং দিতে পারবেন।।

৩। কোম্পানির নির্ধারিত আবেদন ফরমে ২ কপি ছবি, ভােটার আইডি কার্ডের ফটোকপি ও কাঠা প্রতি ১০,০০০/- (দশ হাজার) টাকা বুকিং মানি সহ গ্রাহককে প্লটের জন্য আবেদন করতে হবে। যিনি নমিনী হবেন তার ২ কপি ছবি ও ভােটার আইডি/জন্ম নিবন্ধনের ফটোকপি প্রদান করতে হবে।

৪। প্লটের মূল্য কোম্পানির নির্ধারিত মূল্য তালিকা অনুযায়ী নির্ধারিত হবে। কোম্পানি যে কোন সময় মূল্য তালিকা পরিবর্তনের অধিকার সংরক্ষণ করে। তবে নির্ধারিত মূল্যে প্লট বুকিং হওয়ার পর ভবিষ্যতে উক্ত প্লটের মূল্যের উপর কোম্পানি কোন রকম পরিবর্তন করবে না।

৫। এককালীন মূল্য পরিশােধের ক্ষেত্রে সম্পূর্ন টাকা পরিশােধ করার পর কোম্পানি ১ মাসের মধ্যে সাবকবলা রেজিষ্ট্রেশন করে দিবেন, তবে এত সংক্রান্ত সকল প্রকার খরচ ক্রেতাকে বহন করতে হবে।

৬। কিস্তির ক্ষেত্রে বুকিং- এর ১ (এক) মাসের মধ্যে সর্বমােট মূল্যের ১০% ডাউন পেমেন্ট পরিশােধ করতে হবে। অবশিষ্ট টাকা চুক্তি অনুযায়ী সর্বোচ্চ ১২০ মাসের কিস্তিতে পরিশােধ যােগ্য।

৭। কিস্তির টাকা প্রতি ইংরেজি মাসের ১০ তারিখের মধ্যে গ্রাহককে পরিশােধ করতে হবে। অন্যথায় কিস্তির উপর ৫% (শতকরা ৫) টাকা সার চার্জ প্রযােজ্য হবে।

৮। এককালীন মূল্য পরিশােধের ক্ষেত্রে সম্পূর্ন টাকা পরিশােধ করার পর এবং কিস্তির ক্ষেত্রে নূন্যতম ৬ (ছয়) টি কিস্তিপরিশােধের পর ৩০০/- (তিন শত) টাকার নন্ জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে আবেদনকারীর সাথে কোম্পানির চুক্তিনামা সম্পন্ন হবে।

৯। সকল পেমেন্ট জন্মভূমি প্রপার্টিজ লিঃ এর অনুকুলে চেক/ক্যাশ/ ব্যাংক ড্রাফট/ পে-অর্ডারের মাধ্যমে পরিশােধ যােগ্য।।

১০। বিদেশে অবস্থানরত প্রবাসী ক্রেতাগণ সমপরিমান টাকা বৈদেশিক মুদ্রায় টি. টি বা ব্যাংক ড্রাফটের মাধ্যমে পরিশােধ করতে পারবেন। উক্ত বৈদেশিক মুদ্রা প্রাপ্তিকালে সংশ্লিষ্ট তফসিল ব্যাংক কর্তৃক নির্ধারিত বিনিময় হারে টাকায় রূপান্তর করা হবে।

১১। বুকিং ও কিস্তি পরিশােধের জন্য গ্রাহক কর্তৃক প্রদত্ত চেক, ব্যাংক কর্তৃক প্রত্যাখাত হইলে উল্লেখিত টাকা নগদ এবং সার্ভিস চার্জ বাবদ ২,০০০/- (দুই হাজার) টাকা ৭ (সাত) দিনের মধ্যে পরিশােধ করতে হবে। একই ব্যক্তির চেক বারবার প্রত্যাখাত হইলে পরবর্তিতে তাহার কোন চেক গ্রহন করা হবে না, এবং কোম্পানির নিয়ম অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

১২। কিস্তির অর্থ পরিশােধের ক্ষেত্রে ৯০ দিন পর্যন্ত অপরিশােধিত অর্থের উপর ৫% হারে বিলম্ব ফি প্রদান সাপেক্ষে গ্রাহক কিস্তি পরিশােধ করতে পারবেন। ৯০ দিনের মধ্যে কিস্তির অর্থ পরিশােধে ব্যর্থ হলে সে ক্ষেত্রে কোম্পানির কর্তৃপক্ষ নােটিশের মাধ্যমে বরাদ্দকৃত প্লট বাতিল করতে পারবেন।

১৩। কোন প্লট গ্রহীতা বুকিং পরবর্তী প্লটের কিস্তি প্রদানে অসামর্থ/ অসম্মত হলে উভয় পক্ষের সমঝােতার ভিত্তিতে জমাকৃত টাকা ক্রেতাকে, কোম্পানির কর্তৃপক্ষ বুকিং মানি কর্তন করে বাকি অর্থ কিস্তিতে প্রদান করবেন। তবে বিক্রয়ের সময় কোন বিশেষ প্রমােশন থাকলে বা গিফট প্রদান করা হলে তার অর্থ প্রদানকৃত অর্থের সাথে সমন্বয় করে কর্তন করা হবে।

১৪। যদি কোন ক্রেতা প্লট বুকিং এর ১ (এক) বছরের মধ্যে প্লট বাতিল করতে চান তবে প্লটটি বাতিল করতঃ ক্রেতার প্রাপ্য টাকা কোম্পানির নিয়ম অনুযায়ী (১৩ নং এ প্রদত্ত)। ১ (এক) বছর পর হতে ক্রেতাকে কোম্পানির কর্তৃপক্ষ ফেরত দিবেন।

১৫। গ্রাহক তার প্লটের মালিকানা পরিবর্তন করতে পারবেন। রক্ত সম্পর্কিত কেউ বা স্বামী / স্ত্রী হলে কাঠা প্রতি ৫,০০০/- (পাঁচ হাজার) টাকা অন্যথায় কাঠা প্রতি ১০,০০০/ (দশ হাজার) টাকা কোম্পানির কর্তৃপক্ষকে প্রদান করতে হবে।।

১৬। তফসিল বর্ণিত সম্পত্তি (প্লট) মাটি ভরাট কালীন সময়ে প্রকল্প উন্নয়ন খরচ যা কোম্পানি কর্তৃক নির্ধারিত ফি ক্রেতাকে পর্যায়ক্রমে পরিশােধ করতে হবে।

১৭। বসবাসের উপযােগী বা রেডি প্লটের ক্ষেত্রে চুক্তি অনুযায়ী টাকা পরিশােধ সাপেক্ষে “জন্মভূমি ডেভেলপার এন্ড প্রপার্টিজ লিঃ” কর্তৃক উল্লেখিত প্লটের সীমানা নির্ধারন পূর্বক রেজিষ্ট্রেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করবেন। প্লট রেজিষ্ট্রি ও ট্রান্সফারের জন্য দলিলের স্ট্যাম্প ডিউটি, রেজিষ্ট্রেশন ফি, গেইন ট্যাক্স, ভ্যাট ডকুমেন্টেশন চার্জ সহ আনুষাঙ্গিক খরচ ক্রেতা বহন করবেন।

১৮। প্রকল্পের পানি, গ্যাস, বিদ্যুৎ ইত্যাদি সরবরাহ কোম্পানির উদ্যোগে সংশ্লিষ্ট সংস্থা সমূহের সহযােগিতায় ব্যবস্থা করা হবে। এত সংক্রান্ত যাবতীয় খরচ প্লট গ্রহীতাকে বহন করতে হবে। প্রকল্পের খরচ অনুযায়ী তা নির্ধারন করা হবে।

১৯। প্লটের পরিমান বৃদ্ধি বা কমতির জন্য মূল্য সমন্বয় করা হবে।

২০। গ্রাহকের সাথে কোম্পানি কর্তৃক প্রদত্ত চুক্তিনামার অধীনে যাবতীয় শর্তাবলী এবং পক্ষদ্বয়ের পারস্পরিক দায়-দায়িত্ব গ্রাহকের অবর্তমানে তাঁর নমিনীর ক্ষেত্রেও সমভাবে প্রযােজ্য হবে।

২১। গ্রাহকের নামে বরাদ্দকৃত নির্দিষ্ট প্লট কেবলমাত্র নির্ধারিত উদ্দেশ্যেই ব্যবহার করতে হবে। প্লটের সকল উন্নয়ন কর্মকান্ড সরকারি নীতিমালা অনুসারে সম্পন্ন করতে হবে।

২২। প্রাকৃতিক দূর্যোগ, রাজনৈতিক অস্থিরতা, সরকারি সিদ্ধান্ত, নিয়ন্ত্রন বহির্ভূত বা অন্য কোন কারণে প্রকল্পের উন্নয়ন ও হস্তান্তর বিলম্বিত হলে কোম্পানি দায়ী থাকবে না।

২৩। কোন কারণে সরকার, প্রকল্পের জমি সহ অন্যান্য জমি অধিগ্রহণ করেন তাহলে কোম্পানি কোন ভাবেই দায়ী থাকবে না। উল্লেখ্য যে ক্রেতার প্রদেয় টাকা কোম্পানির নিয়ম অনুযায়ী যথাযথ ভাবে কোম্পানির কর্তৃপক্ষ ক্রেতাকে ফেরত দিবেন।

২৪। প্রকল্পের স্বার্থে অথবা অনিবার্য কারন বশতঃ প্রকল্পের ডিজাইন লে-আউট এবং উপরােক্ত নীতিমালা সমূহের যে কোন প্রকার পরিবর্তন বা পরিবর্ধণ, সংযােজন, বিয়ােজন করার ক্ষমতা কোম্পানির কর্তৃপক্ষ সংরক্ষণ করে।